চট্টগ্রাম

চট্টগ্রামেও চলছে গণপরিবহন

লকডাউনের কারণে প্রায় ২০ দিন বন্ধের পর চট্টগ্রামসহ সারাদেশে গণপরিবহন চলাচল শুরু হয়েছে। চলমান লকডাউনের মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি মেনে গণপরিবহন চলাচলের নির্দেশনা দেয় সরকার।

অর্ধেক যাত্রী আর বর্ধিত ভাড়া নিয়ে বৃহস্পতিবার (০৬ মে) ভোর থেকে গণপরিবহন চলাচল শুরু হয়।

তবে কোনও গণপরিবহন জেলার সীমানা অতিক্রম করতে পারবে না।

এদিকে অর্ধেক যাত্রী আর বর্ধিত ভাড়া নিয়ে বৃহস্পতিবার (০৬ মে) ভোর থেকে গণপরিবহন চলাচল শুরু হয়েছে। যদিও স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছে কিনা তা দেখভালের জন্য পরিবহন মালিক কিংবা শ্রমিক সংগঠনের কাউকে দেখা যায়নি।

এছাড়া বেশ কয়েকটি রুটের বাসের দেখা গেছে, সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী দুই সিটে একজন করে যাত্রী পরিবহন করা হচ্ছে। সকাল থেকে যাত্রীর চাপ কিছুটা কম থাকায় পরিবহনের চালক ও হেলপাররা অতিরিক্ত যাত্রী ওঠানোর সুযোগ পাচ্ছেন না। কিন্তু শহর এলাকার বাসগুলোতে সরকারী নির্দেশনা উপেক্ষা করে ৬০শতাংশ বাড়তি ভাড়ার স্থলে দ্বিগুন বা অতিরিক্ত ভাড়া নেয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ করছেন যাত্রীরা।

এদিকে, সড়কে গণপরিবহন চলাচলের ক্ষেত্রে পাঁচটি নির্দেশনা দিয়েছে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ)।

বিআরটিএর নির্দেশনাগুলো হলো: আন্তঃজেলা গণপরিবহন বন্ধ থাকবে। কোনোভাবেই সংশ্লিষ্ট মোটরযানের রেজিস্ট্রেশন সার্টিফিকেটে উল্লিখিত মোট আসন সংখ্যার অর্ধেকের (৫০%) বেশি যাত্রী বহন করা যাবে না। কোনোভাবেই সমন্বয়কৃত ভাড়ার (বিদ্যমান ভাড়ার ৬০% বৃদ্ধি) অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করা যাবে না। ট্রিপের শুরু ও শেষে জীবাণুনাশক দিয়ে গাড়ি জীবাণুমুক্ত করতে হবে এবং পরিবহন সংশ্লিষ্ট মোটরযান চালক, অন্যান্য শ্রমিক কর্মচারী ও যাত্রীদের বাধ্যতামূলক মাস্ক পরিধান ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে।

কোনও গণপরিবহন জেলার সীমানা অতিক্রম করতে পারবে না

অর্ধেক যাত্রী, বর্ধিত ভাড়া

যাত্রীর মুখে মাস্ক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *